তাওহীদ- সবার আগে!

तहरीर: মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি


আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ'লা বলেন,

"আর আমি অবশ্যই প্রত্যেক জাতিতে একজন রাসূল প্রেরণ করেছি যে, তোমরা আল্লাহর ইবাদাত কর এবং পরিহার কর তাগূতকে…" (সূরা নাহল- ৩৬)

যখন আমাদের নেতা, আমাদের প্রিয় মুহাম্মদ ﷺ মুয়ায বিন জাবাল রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুকে ইয়ামানের গভর্নর হিসেবে প্রেরণ করলেন। তখন তিনি ﷺ তাঁকে নাসীহাত করলেন,

"তাদের প্রতি তোমার প্রথম আহবান হবে- তারা যেন তাওহীদ তথা আল্লাহর একত্ববাদকে মেনে নেয়।"

[সহীহ বুখারী, কিতাবুত তাওহীদ, হা- ৭৩৭২]

হারিস বিন হারিস আল-আঈযীঈ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত আছে যে, তিনি বলেন,

"যখন আমি মক্কায় আসলাম (আইয়্যামে জাহালিয়ার সময়), আমি দেখলাম লোকেরা নবী ﷺ কে ঘিরে দাড়িয়েছিল। তো আমি আমার বাবাকে জিজ্ঞেস করলাম,

'এই লোকেরা এখানে কেন ভীর হলো?'

আমার বাবা উত্তর দিল,

'এই লোকেরা একটি সাবী*র চারপাশে জমা হয়েছে।'

" فإذا النبي ﷺ يدعو إلى توحيد الله والإيمان"

"আমি সেদিকে নিকট গিয়ে দেখলাম নবী ﷺ লোকেদের ইমান এবং আল্লাহর তাওহীদের দিকে দাওয়াত দিচ্ছিলেন।'

[আত-তারিখুল কাবীর লিল-বুখারীঃ ২/২৬২, সনদ সহীহ, আবু যুরুয়াহ আদ-দ্বিমাশকী এটিকে ইবনে আসাকীরের তারিখে দামেশকে সহীহ স্তরে উল্লেখ করেছেনঃ ১২/২১৩-২১৪, এছাড়াও বর্ণনা করেছেন, ইবনে আবী আসিম তার আল-আহাদ ওয়াল মাসানীঃ ৫/৩৭৪-হা. ২৯৭৬]

উপরোক্ত দুটি বর্ণনাসমূহ থেকে আমরা আল্লাহর তাওহীদের গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে পারি এবং এটি আল্লাহর দিকে দাঈদের (দাওয়াতী) পথ নির্ধারণ করে, যাতে তাওহীদের প্রতি দাওয়াতকে কখনই অবহেলা করা না যায়।

দ্বীনে ইসলামের মূল ভিত্তিই হলো তাওহীদ। সুতরাং, দ্বীনের প্রথম দাওয়াতটি, সর্বদা এর দিকেই হওয়া উচিত। সালাত ও জিহাদ কেবল তখনই গ্রহণযোগ্য হবে যদি ঐ ব্যক্তির তাওহীদ সম্পূর্ণরূপে অপবিত্রতা ও শিরক থেকে মুক্ত থাকে।

নবী ﷺ এর চরিত্র এবং সালাফে সালেহীন এর জীবনী থেকে বোঝা যায় যে, তাওহীদের প্রতি দাওয়াতকে তাঁরা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন। সুতরাং, প্রত্যেক ব্যক্তির উপর এটা ফরজ যে,তিনি তাওহীদ ও সুন্নাহর পথ অবলম্বন করবে, এর ফলে যাতে তাঁর পুরো জীবনই আল্লাহ তায়ালার ইবাদতে ব্যয় হয় এবং সে তার সমস্ত ইবাদত একমাত্র আল্লাহর জন্যই করে।

এবং সে তার অন্তরে দৃঢ় বিশ্বাস স্থাপন করবে যে, 'আমার ইবাদত, আমার কুরবানী, আমার জীবন এবং আমার মৃত্যু সব বিশ্বজগতের পালনকর্তার জন্য, যার সাথে তাঁর কোন শরিক নেই এবং আমাকে এটাই করার আদেশ দেওয়া হয়েছে এবং আমি সবার আগে এক আল্লাহর আনুগত্যকারী অর্থাৎ একজন মুসলিম।'

যে ব্যক্তি তাওহীদকে ছেড়ে দিয়ে অন্য পথ অনুসরণ করবে, আল্লাহ তাআলা তার সমস্ত আমল বরবাদ-বিনষ্ট করে দিবেন। যেমন তিনি বলেন,

"নিশ্চয় যে আল্লাহর সাথে শরীক করে, তার উপর অবশ্যই আল্লাহ জান্নাত হারাম করে দিয়েছেন এবং তার ঠিকানা আগুন। আর যালিমদের কোন সাহায্যকারী নেই।" (সূরা মায়িদাহঃ ৭২)

হে আল্লাহ! আমাদের তাওহীদ ও সুন্নাহর উপরে বাঁচিয়ে রাখুন এবং আমাদের এর উপর মৃত্যু দান করুন। আমীন!

★ সাবী = {এই শব্দটা তাদের জন্য ব্যবহার করা হয়, যারা মক্কার মূর্তিপূজারী এবং তারা নবী ﷺ ও তাঁর সাহাবীদের ওপর অত্যাচার-গালাগাল করতো। সাধারণত, এটা তাদেরও বুঝায় যারা ধর্মান্ধ বা ধর্মত্যাগী হয়ে যায়।}

------------

तहरीर: মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি

অনুবাদক- এইচ.আর.সিহাব মুহতাদী

উৎস- ইলমি মাক্বালাতঃ ২/১৩-১৪

অন্যান্য নিবন্ধ:

1 হানাফী নামাজ! নাকি আল্লাহর রাসূলের মুহাম্মাদী সালাত? মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি
2 লেনদেনে কমিশন নেয়া মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি
3 خلق آدم علی صورتہ অর্থ মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি
4 ঈমানদারগণ পরষ্পর ভাই-ভাই মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি
5 মুজাদ্দিদ কে? মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি
6 মুহাদ্দিসুল আসার শায়েখ যুবাইর আলী যাঈ রহিমাহুল্লাহ- সমসাময়িক ওলামদের দৃষ্টিতে
7 তাওহীদ- সবার আগে! মুহাদ্দিসুল আসর হাফেজ যুবায়ের আলী জায়ি রহমাতুল্লাহ আলাইহি

Android App --or-- iPhone/iPad App

IshaatulHadith Hazro © 2022